লিম্ফোসাইট(Lymphocytes) কী?

লিম্ফোসাইট (Lymphocytes) হল রক্তের সাদা কোষের একটি প্রধান ধরন যা আমাদের শরীরের প্রতিরোধ ক্ষমতার একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। এই কোষগুলি আমাদের শরীরকে বিভিন্ন ধরনের প্যাথোজেন, যেমন ব্যাকটেরিয়া, ভাইরাস, এবং অন্যান্য অণুজীব থেকে রক্ষা করে। লিম্ফোসাইট দুটি প্রধান ধরনের হতে পারে: বি-লিম্ফোসাইট এবং টি-লিম্ফোসাইট। এছাড়াও আরও এক ধরনের লিম্ফোসাইট আছে, যার নাম এনকে (ন্যাচারাল কিলার) কোষ।

লিম্ফোসাইটের(Lymphocytes) প্রকারভেদ

১. বি-লিম্ফোসাইট (B-lymphocytes):

  • বি-লিম্ফোসাইটগুলি অস্থি মজ্জায় উৎপন্ন হয় এবং এর প্রধান কাজ হল এন্টিবডি তৈরি করা। এন্টিবডি হল প্রোটিন যা নির্দিষ্ট প্যাথোজেনের বিরুদ্ধে কাজ করে।
  • যখন কোনো প্যাথোজেন শরীরে প্রবেশ করে, বি-লিম্ফোসাইটগুলি তাকে চিনে এবং তার বিরুদ্ধে বিশেষ এন্টিবডি তৈরি করে যা প্যাথোজেনকে নিষ্ক্রিয় করতে সাহায্য করে।

২. টি-লিম্ফোসাইট (T-lymphocytes):

  • টি-লিম্ফোসাইটগুলি থাইমাস গ্রন্থিতে পরিণত হয় এবং এরা বিভিন্ন উপায়ে প্যাথোজেনের বিরুদ্ধে কাজ করে।
  • টি-লিম্ফোসাইটের আবার কয়েকটি উপশ্রেণী আছে, যেমন:
    • হেল্পার টি-সেল (Helper T-cell): এই কোষগুলি বি-লিম্ফোসাইট এবং অন্যান্য টি-লিম্ফোসাইটকে সক্রিয় করতে সাহায্য করে।
    • সাইটোটক্সিক টি-সেল (Cytotoxic T-cell): এই কোষগুলি সংক্রামিত কোষগুলিকে ধ্বংস করতে সক্ষম।
    • রেগুলেটরি টি-সেল (Regulatory T-cell): এই কোষগুলি ইমিউন প্রতিক্রিয়া নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে।

৩. ন্যাচারাল কিলার (Natural Killer, NK) কোষ:

  • এনকে কোষগুলি শরীরের প্রথম প্রতিরক্ষা লাইন হিসাবে কাজ করে এবং সংক্রামিত কোষ ও ক্যান্সার কোষকে ধ্বংস করতে পারে।
  • এনকে কোষগুলি সাধারণত টিউমার কোষ এবং ভাইরাস সংক্রমিত কোষকে টার্গেট করে।

লিম্ফোসাইটের কাজ

লিম্ফোসাইটগুলি আমাদের শরীরের প্রতিরোধ ক্ষমতা নিশ্চিত করতে বিভিন্ন ধরনের কাজ করে। প্রধান কাজগুলি হল:

১. প্যাথোজেন চিহ্নিত করা:

  • লিম্ফোসাইটগুলি প্যাথোজেনের উপর বিশেষ প্রোটিন (এন্টিজেন) শনাক্ত করে এবং তার বিরুদ্ধে প্রতিক্রিয়া তৈরি করে।

২. এন্টিবডি তৈরি করা:

  • বি-লিম্ফোসাইটগুলি প্যাথোজেনের বিরুদ্ধে এন্টিবডি তৈরি করে, যা প্যাথোজেনকে নিষ্ক্রিয় করে এবং ধ্বংস করে।

৩. সংক্রমিত কোষ ধ্বংস করা:

  • সাইটোটক্সিক টি-সেল এবং এনকে কোষগুলি সংক্রমিত বা ক্যান্সার কোষগুলি ধ্বংস করতে সাহায্য করে।

৪. ইমিউন মেমোরি তৈরি করা:

  • যখন একটি প্যাথোজেন প্রথমবার শরীরে প্রবেশ করে, লিম্ফোসাইটগুলি তা স্মরণ রাখে। পরবর্তীতে যদি সেই প্যাথোজেন আবার আক্রমণ করে, তাহলে লিম্ফোসাইটগুলি দ্রুত প্রতিক্রিয়া জানাতে পারে।

লিম্ফোসাইটের(Lymphocytes) উৎপত্তি ও পরিণতি

লিম্ফোসাইটগুলি মূলত অস্থি মজ্জায় উৎপন্ন হয়। বি-লিম্ফোসাইটগুলি অস্থি মজ্জায় পরিণত হয়, আর টি-লিম্ফোসাইটগুলি থাইমাস গ্রন্থিতে পরিণত হয়। পরিণত হওয়ার পর, এরা রক্ত এবং লিম্ফ্যাটিক সিস্টেমের মাধ্যমে শরীরের বিভিন্ন অংশে ছড়িয়ে পড়ে।

লিম্ফোসাইটের(Lymphocytes) সংখ্যা ও স্বাস্থ্য

স্বাভাবিকভাবে, মানুষের রক্তে লিম্ফোসাইটের সংখ্যা প্রতি মাইক্রোলিটারে ১০০০ থেকে ৪৮০০ টি পর্যন্ত হতে পারে। লিম্ফোসাইটের সংখ্যা কম বা বেশি হলে তা বিভিন্ন রোগের নির্দেশক হতে পারে।

১. লিম্ফোসাইটোপেনিয়া (Lymphocytopenia):

  • যখন রক্তে লিম্ফোসাইটের সংখ্যা স্বাভাবিকের চেয়ে কম হয়, তখন তাকে লিম্ফোসাইটোপেনিয়া বলা হয়। এই অবস্থা ইমিউন সিস্টেম দুর্বল হওয়ার লক্ষণ হতে পারে।
  • বিভিন্ন ভাইরাস সংক্রমণ (যেমন HIV), ক্যান্সার, এবং অটোইমিউন ডিজিজ (যেমন লুপাস) এর কারণ হতে পারে।

২. লিম্ফোসাইটোসিস (Lymphocytosis):

  • যখন রক্তে লিম্ফোসাইটের সংখ্যা স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি হয়, তখন তাকে লিম্ফোসাইটোসিস বলা হয়। এটি বিভিন্ন সংক্রমণ বা ক্যান্সারের লক্ষণ হতে পারে।
  • বিভিন্ন ভাইরাস সংক্রমণ (যেমন ইবোলা), ব্যাকটেরিয়াল সংক্রমণ (যেমন যক্ষ্মা), এবং ক্যান্সার (যেমন লিউকেমিয়া) এর কারণ হতে পারে।

লিম্ফোসাইট(Lymphocytes) পরীক্ষা ও নির্ণয়

লিম্ফোসাইটের সংখ্যা ও কার্যক্ষমতা নির্ধারণের জন্য বিভিন্ন পরীক্ষা করা যেতে পারে। সাধারণত, রক্ত পরীক্ষার মাধ্যমে লিম্ফোসাইটের সংখ্যা নির্ধারণ করা হয়। এছাড়া বিভিন্ন ইমিউনোলজিক্যাল পরীক্ষা লিম্ফোসাইটের কার্যক্ষমতা বিশ্লেষণ করতে ব্যবহৃত হয়।

লিম্ফোসাইটের(Lymphocytes) ভূমিকা ও চিকিৎসা

লিম্ফোসাইটগুলি আমাদের শরীরের প্রতিরোধ ক্ষমতার একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ হওয়ায়, এদের ভূমিকা ও কার্যক্ষমতা নিশ্চিত করা গুরুত্বপূর্ণ। বিভিন্ন চিকিৎসা পদ্ধতি লিম্ফোসাইটের কার্যক্ষমতা উন্নত করতে সাহায্য করতে পারে। যেমন:

১. ইমিউনোথেরাপি:

  • ক্যান্সার চিকিৎসায় ইমিউনোথেরাপি লিম্ফোসাইটগুলি সক্রিয় করে ক্যান্সার কোষের বিরুদ্ধে কাজ করতে সাহায্য করে।

২. ভ্যাকসিন:

  • ভ্যাকসিনগুলি লিম্ফোসাইটগুলিকে নির্দিষ্ট প্যাথোজেনের বিরুদ্ধে ইমিউন মেমোরি তৈরি করতে সাহায্য করে, যা ভবিষ্যতে সেই প্যাথোজেন আক্রমণ করলে দ্রুত প্রতিক্রিয়া জানাতে সক্ষম হয়।

৩. অ্যান্টিভাইরাল এবং অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল ওষুধ:

  • এই ধরনের ওষুধগুলি প্যাথোজেনের সংক্রমণ কমাতে সাহায্য করে এবং লিম্ফোসাইটগুলিকে সমর্থন করে।

লিম্ফোসাইট(Lymphocytes) হল আমাদের শরীরের প্রতিরোধ ক্ষমতার একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। এরা আমাদের শরীরকে বিভিন্ন ধরনের প্যাথোজেন থেকে রক্ষা করে এবং আমাদের ইমিউন সিস্টেমকে শক্তিশালী করে। লিম্ফোসাইটের কার্যক্ষমতা সঠিকভাবে নির্ধারণ এবং উন্নত করতে বিভিন্ন চিকিৎসা পদ্ধতি ও পরীক্ষা ব্যবহৃত হয়। এভাবে লিম্ফোসাইটগুলি আমাদের শরীরকে সুস্থ রাখতে এবং বিভিন্ন সংক্রমণ ও রোগ থেকে রক্ষা করতে সাহায্য করে।



About author

saikat mondal

Welcome to www.banglashala.com. Banglashala is a unique address for Bengali subjects. banglashala is an online learning platform for Bengalis. So keep learning with us




Leave a Reply

eight + twelve =